• শনিবার ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ ২০শে আগস্ট, ২০২২ ইং
  • রাত ১:৩৫

আয়নার পারদে (চিঠি) – মরিয়ম আক্তার তুলি

12 July, 2020 AM 10:28 ৭৩৪ বার দেখা হয়েছে

ওমন করে হেসোনা, সইতে পারিনা।তোমার এমন অট্টহাসি আমায় বারবার ভুলের পথে নিয়ে যায়। বেহাগের বিরহী অনলে পুড়ে সব সুরের তাল কেটে যায়।তবুও আমি অসহায় হয়ে রোজ তোমার পছন্দের গান শুনে যাই। একা একাই হারিয়ে যাই গহীন অরণ্যে। আচ্ছাদিত মায়াবী জাল ফেলি কূলকিনারা হীন বন্দরে।আমাদের ছোট্ট নীড়ে সুখের পবন বহে না। অথচ আমরাই সবথেকে সুখী দাম্পত্য জীবন পার করেছি। আমাদের চাহিদা গুলো ছিলো, ভালোবেসে ভালো থাকার মাঝে সীমাবদ্ধ। আমরা কলা পাতায় আহার করতাম।ভবঘুরে জীবনে যে সুখ ছিলো তাতেই তুচ্ছ ছিলো সোনার মহল। আমাদের আশেপাশে থাকা মানুষ গুলো হিংসায় জ্বলতে থাকতো সারাক্ষণ। তুমিতো প্রায় গর্বের সুরে বলতে আমাদের ভালোবাসার কাছে বাকি ভালোবাসার গল্প গুলো ক্ষুদ্র থেকে ক্ষুদ্রতম। মাঝেমধ্যেই আমাকে বকাবকি করতে বলতে আচ্ছা তোমার কী বোধদয় হবেনা। তুমি কীসের সাথে কী তুলনা করো? আমাদের মত ভালোবাসা ক’জন বাসতে পারে বলতো?আমি তখন হাসতাম,, তোমার ঝলমলে মসৃণ কালো চশমার কাঁচ গলে যে গভীর সমুদ্র আছে সেই সমুদ্রের বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখে।
আমরা রোজ একটু একটু করে আগামীর স্বপ্ন দেখতাম। তুলতলে কচি আঙুলের মাঝে আঙুল রাখার স্বপ্ন। আমাদের অনাগত ভ্রুণের জীবন্ত হবার স্বপ্ন। অবশ্য আমাদের ও কিছু অপূর্ণতা ছিলো।তাতে কী সুখ কী কম ছিলো বলো?আচ্ছা তোমার মনে আছে আমাদের প্রথম একাসাথে ঘুরতে যাওয়ার কথা ওটাই নাকি তোমার ভাষায় আমাদের প্রথম হানিমুন।
কতশত স্মৃতির কার্নিশ টপকানো যায় সেই সাতটা দিনের ট্যুরে। যখন তোমার আমার কথার ছলে সেই বেড়াতে যাওয়ার প্রসঙ্গে কথা উঠতো। তুমি বারবার বলতে তুমি রাগ হলেও আমার কিছু করার নেই বাবু। এই জীবনে যত প্রশান্তি আসুক না কেন। ঐ সাতটা দিনের মত স্বর্গীয় সুখী জীবন যাপন আমার আর হবেনা। আমি অজান্তেই কষ্ট পেতাম থমকে যেতাম।
কিন্তু মজার বিষয় কী জানো?আজকাল আমিও বিশ্বাস করা শুরু করেছি, ঐ সাতটা দিনের মত পাহাড়ি লতাগুল্ম, আর সমুদ্র স্নানের সুখময় প্রশান্তির ছাপ আর হয়তো লাগবেনা এই পোড়া জীবনে।
এই তুমি ওমন করে আর হেসোনা গো আমার কষ্ট হয়।

বিলুপ্তির পথে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে আজ আমাদের সংসারের ঐশ্বর্য। ভেঙেচুরে এলোমেলো সকল তৈজসপত্র। আজ বড় নির্মম সময়ের হাতে বন্দী হয়ে বৈষয়িক দুর্যোগের কবলে সবকিছু কেমন ছিন্ন ভিন্ন হয়ে যাচ্ছে।আজকাল চিন্তার রেখায় আঁকা বাস্তব চিত্র কাল্পনিক অস্তিত্বগুলোকে ক্ষতবিক্ষত করে দিচ্ছে। কেউ কাউকে আপোষের সুতোয় বেঁধে রাখতে পারছিনা।আজকাল রোজ ঠুকাঠুকি, রোজ অভিমান করে পাশফিরে ঘুমিয়ে থাকা। আমিত্ববোধের অহংকারে আক্রান্ত আমাদের সোনালী স্বপ্ন গুলো। একটু একটু করে আমাদের দূরে সরিয়ে দিচ্ছে।এই তুমি কী বুঝতে পারছো আমাদের এখন আর প্রেম করা হয়ে ওঠেনা।

আমাদের সেই অহংকার করার মত সংসার আর নেই? আমরাও এভারেজ বাকি অনেকের মতো।এসো একটিবার তাকিয়ে দেখি দু’জন পারদ লাগানো আয়নায় তুমি আর আমি সেই আগের আমরা নেই।

বর্ণ টিভি