• বুধবার ১৯শে আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ ৪ঠা অক্টোবর, ২০২৩ ইং
  • সন্ধ্যা ৬:১৭

৩০টি পরিবারকে ত্রান সামগ্রী দিলো জীবননগর স্বেচ্ছায় রক্তদান ফাউন্ডেশন

6 April, 2020 AM 10:28 ১৫৮ বার দেখা হয়েছে
কোভিড-১৯ নোভেল করোনা ভাইরাসে বিশ্ব আজ মৃত্যুপূরী।  প্রতিদিনই জ্যামিতিক হারে বাড়ছে সংক্রমণ৷ এরই মধ্যে বিভিন্ন জনসমাগম ও করোনা সচেতনতায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷ সরকার কর্তৃক ত্রান পৌঁছিয়ে দিলেও তারা পর্যাপ্ত পরিমাণে তা গ্রহণ করতে পারছে না।  এতে খেটে খাওয়া মানুষ পড়েছে চরম  বিপাকে। এমন অবস্থায় খেটে খাওয়া ছিন্নমূল মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে চুয়াডাঙ্গা জীবননগর উপজেলার, কেডিকে ইউনিয়ন এর জীবননগর স্বেচ্ছায় রক্তদান ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবী। বিশ্বব্যাপি বিস্তার লাভ করা নোবেল করোনাভাইরাসের প্রভাবে বিশ্ব এখন অচল। বিশ্বজুড়ে চলছে লকডাউন।  সমগ্র বাংলাদেশে নানারকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ সরকার।  এছাড়াও  নানারকম পদক্ষেপ গ্রহণ করছে দেশের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷

স্কুল কলেজ, অফিস আদালত, দোকানপাট সব কিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি লোকজনকে বাড়িতে থাকার পরামর্শ প্রদান করে। সে অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সকল প্রসাশন।  ছিন্নমূল খেটে খাওয়া মানুষের কাজের অভাব দেখা দিয়েছে। কাজ নাই তাই আয়-রোজগারও নাই। খেটে খাওয়া এসব মানুষের মধ্যে নেমে এসেছে চরম দূর্দশা।  এসব ছিন্নমূল মানুষের দূর্দশা দেখে দুমড়েমুচড়ে ওঠে বিভার হৃদয়।  মানুষের এমন দুঃসময়ে মানুষের পাশে এসে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছি জীবননগর স্বেচ্ছায় রক্তদান ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবী সদস্যবৃন্দু।  তানভীর হোসেন রাজীব ও যুবক স্বেচ্ছাসেবকের  সহযোগীতায়   জীবননগর স্বেচ্ছায় রক্তদান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবকরা ৫ কেজি চাল, আধা কেজি ডাল, ২ কেজি আলু ও ১টি সাবান দিয়ে ৩০ পরিবারের মাঝে বিতরণ করেন।

এ সময় উপস্থিত সংগঠনের সভাপতি মেহেদী হাসান  তার বক্তব্যে  বলেন, বিশ্বব্যাপি বিস্তার লাভ করা নভেল করোনা ভাইরাসের প্রকোপ এখন আমাদের দেশে আঘাত হানতে শুরু করেছে। ছিন্নমূল খেটে খাওয়া মানুষের খাবারের কষ্ট দূর করতে আমরা আজ ৩০ পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতারণ করেছি, সেইসাথে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে হাত ধোয়ার উপকরণ দিয়ে সচেতনামূলক বার্তা দিচ্ছি।  স্বেচ্ছাসেবকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে তাদের কার্যক্রমটি সফলভাবে সম্পন্ন হবে বলে আমি মনে করি। তাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।
এসময় আরও উপস্থিত সংগঠনের সহ সভাপতি শরিফুল ইসলাম বলেন, যেকোনো পরিস্থিতিতে যে কোনো সংকট মোকাবেলার করার সক্ষমতা আমাদের সরকারের অবশ্যই আছে৷ তবুও আমরা স্বেচ্ছাসেবক বৃন্দ খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি৷ তারই ধারাবাহিকতায় যারা প্রতিবন্ধী গাড়ি চালক এবং কর্ম করে খাওয়ার মত সক্ষমতা নেই তাদের হাতে কিছু খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছি৷ যাতে তারা আগামী কয়েকদিন স্বাচ্ছন্দে বাড়িতে লকডাউনে  থেকে খেতে পারে৷ এ সময় তিনি সমাজের বিত্তবানদের আহ্বান জানান, দুস্থ দের পাশে দাঁড়ানোর৷
আরও উপস্থিত ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজাদ হোসেন, এস.এইচ.সবুজ, মিনাজুল, সাদ্দাম, আব্দুল্লাহ ও স্বেচ্ছাসেবী সদস্যবৃন্দ৷
বর্ণ টিভি